কলকাতা২৪লাইভ(Kolkata24live):  নারকেলকে কাঁচা অবস্থায় ডাব বলা হয়। যার জল অত্যন্ত সুস্বাদু ও পুষ্টিগুণে ভরপুর। রাজ্যের সর্বত্রই নারকেল গাছ জন্মায়। নারকেলের জল, দুধ ও তেল পুষ্টিগুণে ভরপুর এক উৎকৃষ্ট খাবার। এর শাঁসে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট, চর্বি, প্রোটিন, ভিটামিন বি১, বি২, বি৩, বি৫, বি৬, বি৯, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, জিংক ও পর্যাপ্ত ক্যালরি। নারকেল আমাদের দেহের জন্য খুবই উপকারী। 

১। হার্ট ভাল রাখে:
গবেষণায় দেখা গেছে যে পলিনেশিয়া ও শ্রীলঙ্কায় যেখানে প্রধান খাবার হলো নারকেল সেখানকার মানুষের কোলেস্টেরল বা হার্টের সমস্যা অনেক কম। নারকেলে যে ফ্যাটি অ্যাসিডের চেইন গুলো আছে সেগুলো কোলেস্টেরল বাড়ায় না। হার্ট ভালো রাখতে সহায়তা করে।

২। রোগ দূর করে:
যে সব ভাইরাস ইনফ্লুয়েঞ্জা, হার্পিস, মামস ইত্যাদি রোগ জন্ম দেয়, নারকেল সেসব ভাইরাস গুলোকে নষ্ট করে ফেলে। ফলে এধরণের অসুখ-বিসুখ থেকে কিছুটা রক্ষা পাওয়া যায়। চিকন ও হাড্ডিসার রোগীদের মাংশপেশী গঠনে, পাকস্থলীর ক্ষত ও গলার ঘা সারাতে নারকেল অত্যন্ত কার্যকর।

৩। শরীরের শক্তি বাড়ায়:
নারকেল শরীরের শক্তি বাড়াতে অত্যন্ত উপকারী এবং কর্ম উদ্দীপনা জাগাতে সহায়তা করে। হজম প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে এবং বিভিন্ন ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যামাইনো অ্যাসিড শোষন করে নিতে সহায়তা করে। নারকেল রক্তের ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রনে রাখে এবং ডায়াবেটিস জনিত কারণে শরীরের ক্ষতি রোধ করে।

৪। শরীরের দুর্বলতা দূর করে:
নারকেল খাওয়ার পর এর তৈলাক্ত অংশ কোষে পৌঁছে যায়। কোষ এটি শোষণ করে মুহূর্তেই শক্তিতে পরিণত করে। আমাদের শরীরের দুর্বলতা দূর হয় সহজেই। কিডনির জটিলতায় নারকেলের জল অত্যন্ত উপকারী। জলবসন্ত ও হামের দানা কমাতেও না্কেরলের জল উপকারী। 

৫। ত্বকের জন্য উপকারী:
নারকেলের জল ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। নারকেলে থাকা অরগানিক আয়োডিন সাধারণ গলগণ্ড রোগ প্রতিরোধে ভুমিকা রাখে। নারকেল আমাদের শরীরে ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম গ্রহণ করতে সহায়তা করে। দাঁত ও হাড়ের গঠনে এটি ভূমিকা রাখে।

৬। ওজন কমায়:
ওজন কমাতেও সহায়তা করে নারকেলের জল। এছাড়াও বহুমুত্রে আক্রান্ত রোগীদের জন্য এই জল খুবই উপকারী।