http://www.kolkata24live.com/

দুই শিক্ষকের বিবাদের জেরে রনক্ষেত্রের চেহারা নিল রায়গঞ্জের হাতিয়া হাইস্কুল

কলকাতা২৪লাইভ (kolkata24live) : উত্তর দিনাজপুর। দুই শিক্ষকের বিবাদের জেরে রনক্ষেত্রের চেহারা নিল রায়গঞ্জের হাতিয়া হাইস্কুল। স্কুলের শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে এই অভিযোগ তুলে গ্রামের বাসিন্দারা ওই দুই শিক্ষককেক ব্যাপক মারধর,ভাঙচুর, আক্রান্ত সংবাদ মাধ্যম। পুলিশের লাঠিচার্জ, ঘটনাস্থলে রায়গঞ্জ থানার আইসি, কমব্যাট ফোর্স সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী। আতঙ্কে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা। পরে কর্নজোড়া থেকে রিজার্ভ ফোর্স গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এই ঘটনায় আটক করা হয়েছে। রায়গঞ্জ হাতিয়া হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক অনিরুদ্ধ সিনহার সাথে বিবাদ সহকারি শিক্ষক অমিত রায়ের। দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে আসছেননা সহকারি শিক্ষক অমিত রায়। ছুটি না নিয়েই স্কুল বাদ দিয়ে চলেছেন অমিত বাবু। এরই পরিপ্রেক্ষিতে অমিত রায়কে শোকজ করেন প্রধান শিক্ষক অনিরুদ্ধ সিনহা। এই নিয়েই দুই বিপরীতপন্থী শিক্ষক সংগঠনের নেতার মধ্যে বিবাদ চরমে ওঠে। অভিযোগ, আজ শিক্ষক অমিত বাবু তার স্ত্রীকে স্কুলে নিয়ে এসে অনিরুদ্ধ বাবুকে মারধর করে। অভিযোগ, প্রধানশিক্ষক অনিরুদ্ধ বাবুকে জুতো পেটাও করে। এইঘটনার খবর ছড়িয়ে পরতেই শয়ে শয়ে গ্রামের বাদিন্দারা স্কুলে ঢুকে তান্ডব শুরু করে। স্কুলে ভাঙচুর করার পাশাপাশি পুলিশের সামনেই টিচার্স কমন রুমে ঢুকে শিক্ষক অমিত রায় ও প্রধানশিক্ষক অনিরুদ্ধ সিনহা কে ব্যাপক মারধর করে। ঘটনার ছবি ক্যামেরাবন্দী করতে গেলে সংবাদ মাধ্যমকেও আক্রমন করে উত্তেজি গ্রামের বাসিন্দারা। ক্যামেরাম্যানদের মারধর করার পাশাপাশি তাদের ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এরপরই খবর পেয়ে রায়গঞ্জ থানার আইসির নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী ও কমব্যাট ফোর্স ঘটনাস্থলে পৌছে লাঠিচার্জ করে বহিরাগতদের স্কুলচত্বর থেকে সরিয়ে দেয়। এরই মধ্যে স্কুলের এই অস্থির অবস্থার মধ্যে পরে স্কুলে আসা ছাত্র-ছাত্রীরা ভয়ে আতঙ্কে কান্নাকাটি শুরু করে। পরে তাদের নিরাপদে স্কুল থেকে বের করে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা করে দেওয়া হয়। ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে রায়গঞ্জ কর্নজোড়া থেকে রিজার্ভ ফোর্স সহ পুলিশ আধিকারিকেরা হাতিয়া স্কুল এলাকায় পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। স্কুলের এই ঘটনা প্রসঙ্গে সহকারি শিক্ষক অমিত রায়ের স্ত্রী অর্পিতা রায় বলেন, তার স্বামীর স্কুলের সমস্যা নিয়ে আজ প্রধানশিক্ষক অনিরুদ্ধ রায়ের সাথে কথা বলতে আসেন। কিন্তু প্রধানশিক্ষক তার সাথে অভব্য আচরন করার পাশাপাশি হাত ধরে টানাটানি করে। তিনিও প্রধানশিক্ষককে জুতো দিয়ে মারেন বলে জানান অর্পিতা দেবী। সহকারি শিক্ষক অমিত রায় বলেন প্রধানশিক্ষক হাজিরা খাতা লুকিয়ে রেখে তাকে অনুপস্থিত দেখিয়ে শোকজ করেছেন। হাতিয়া হাইস্কুলের প্রধানশিক্ষক অনিরুদ্ধ সিনহা জানিয়েছেন, অমিত রায় ২০১১ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ২৯১ দিন ছুটি না নিয়ে স্কুলে অনুপস্থিত ছিলেন। তাকে নিয়ম অনুযায়ী পরিচালন কমিটির পরামর্শ করে শোকজ করা হয়েছে। আজই অমিত বাবু তার স্ত্রীকে সাথে নিয়ে এসে তাকে শারীরিক হেনস্থা করে। বিদ্যালয় পরিচালন সমিতির সভাপতি আমজাদ হোসেন জানান, যে শিক্ষককে শোকজ করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে এর আগেও অনুপস্থিতির অভিযোগ ছিল, তাকে শোকজ করা হয়েছিল। আজকে প্রধানশিক্ষকের সাথে যে ঘটনা হয়েছে তা নিন্দনীয়। এদিকে আজ স্কুলে বহিরাগতদের তান্ডবের ঘটনায় আর যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে কারনে স্কুল এলাকা ও সংলগ্ন এলাকায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে। ছয়জন কে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।